1. theprovatibarta@gmail.com : admin : Abu Taher Prince
শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০১:০৪ পূর্বাহ্ন
প্রধান খবর
বঙ্গবন্ধু-কন্যাকে নিয়ে টুকরো স্মৃতি করোনায় আক্রান্ত এমপি বাবু উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় দেশকে এগিয়ে নিতে তরুণ প্রজন্মকে সুযোগ করে দেয়া আহ্বান পুতুলের কয়রা-পাইকগাছাবাসীকে এমপি বাবু’র ঈদুল আযহার শুভেচ্ছা কমমূল্যে পাওয়া যাবে করোনার ভ্যাকসিন ইদ-উল-আযহা উপলক্ষেএতিম শিশুদের মাঝে জেলা প্রশাসন খুলনার উদ্যোগে গরু-ছাগল বিতরণ এমপি উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ করোনায় আক্রান্ত ফের শারিরিক অবস্থার ফের অবনতি ডা. জাফরুল্লা’র করোনায় জীবনরক্ষাকারী প্রথম ওষুধ পাওয়া গেছে কবি প্রণতি। রবীন্দ্রনাথের ছোট গল্পে প্রকৃতি ও মানব জীবন কয়রায় করোনায় বিপর্যস্ত পরিবারের পাশে এম আলিউজ্জামান তায়জুল ভোর রাতে রোজাদারদের মাঝে স্বপ্নযাত্রীর সাহরী বিতরণ জমিজমা বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় কৃষক নিহত করোনায় আক্রান্তদের জন্য তৃতীয় বারের মত বাংলাদেশকে সহযোগিতা ভারতের মানবতার ডাকে সাড়া দিয়ে বিপর্যস্ত মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসুন: সাংসদ বাবু খুলনা জেলা প্রশাসনের মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে শাক-সবজি, দুধ, ডিম কেনা যাবে করোনা সন্দেহে আইসিউতে ইতিহাসবিদ মুনতাসীর মামুন সপ্তম বছরের মত অসহায় কৃষকের ধান কাটছে স্বপ্নদেখো!! নাইকো মামলায় আন্তর্জাতিক আদালতে জয় পেল বাংলাদেশ
add

ফেসবুক থেকে -করোনা চাইল চোর ও জাতীয় রাজনীতি!!

  • মঙ্গলবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২০
  • ১৭৫ বার পড়া হয়েছে

মেহেদী হাসান রাসেল

জামায়াতে ইসলামী রাজনৈতিক দল হিসাবে যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে বিশেষ করে সাইদি সাব, মীর কাশেমের জন্য যত টাকা লবিস্ট নিয়োগে ব্যয় করেছিলেন তা দিয়ে কমপক্ষে একটা বিভাগের সকল গরীব মানুষের দায়িত্ব নেওয়া সম্ভব ছিলো।

শুধু লবিস্ট নয় দেশি বিদেশি মিডিয়ার জন্য নিয়োগ করেছিলেন কোটি কোটি টাকা।

২০১৪ সালে নির্বাচন ঠেকাতে, রাস্তাঘাটে আগুন সন্ত্রাস চালিয়ে, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে বিএনপি কে সাথে নিয়ে অর্থনৈতিক ও সন্ত্রাসী হামলা সবই এই জামায়াত শিবিরের পরিচালনায় হয়েছিল।

হিফাজতের সব বড় বড় বিভাগীয় প্রোগ্রামের ব্যয় পিছন থেকে এরাই কলকাঠি নাড়িয়েছিল।
ঢাকার শাপলা চত্বরের সেই আকাশ সমান ষড়যন্ত্রের নক্সা তাদের করা।

এর পর কোঠা আন্দোলন, সড়ক আন্দোলন থেকে শুরু করে গত দশ বছরের সব বড় বড় গেমের ব্যয় এনারাই বহন করেছেন খুব সুকৌশলে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা কে রাষ্ট্রের দায়িত্ব থেকে সরাতে শত শত কোটি টাকা ইনভেস্ট করেছে পিছন থেকে।

সর্বশেষ গত জাতীয় নির্বাচনে (২০১৮ সালের)খবর শোনা গিয়েছিল প্রশাসন কে কিনতে মাঠ পর্যায়ে কোটি টাকার অফার দেওয়ার ষড়যন্ত্রের কাহিনি।

এই সব রাজনৈতিক দলের নেতারা ধনকুবেররা কোথায়?

এই যে শত শত কোটি টাকা জামায়াতে ইসলামী রাজনৈতিক দল তাদের পাঁচ জন নেতাকে বাঁচাতে ব্যয় করলেন, আওয়ামী লীগ কে ক্ষমতা চ্যুতি করতে ব্যয় করলেন অথচ দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে তারা কত টাকা গরীবের জন্য ব্যয় করছেন?

কোথাও শুনেছেন বা দেখেছেন এই রাজনৈতিক সংগঠন কোন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন?

অথচ এদের ঐশ্বর্যের পালিত সন্তানেরা ঘরে বসে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ বিদেশের ছবি ভিডিও কাটিং করে এডিট করে গুজব ছড়াতে ব্যস্ত।

এদের কাজ কখন কোথায় কিভাবে আওয়ামী লীগের একজন উপসহকারী সদস্য তাও ওয়ার্ড বা ইউনিয়নের তাদের ভুল গুলোকে সামনে এনে হেড লাইন দেন আওয়ামী লীগের নেতা চাইল চোর।

ভিতরে গিয়ে দেখা গেলো আগামী দশ বছর পরে হয়তো একটা সদস্য পাবে ওয়ার্ড বা ইউনিয়নে।

এই দেশে ৭০/৭১ সালেও জামায়াত ছিলো এর গরু ওর মুরগি বড় খাসি নিয়ে পাকিস্তানি বাহিনী কে খাওয়াতেন আর বাড়ি থেকে মেয়েদের ও দিয়ে আসতেন ভোগের জন্য।

এরা টুপি মাথায় দিয়ে ইসলাম কে এমন ভাবে ব্যবহার করে মানুষ এদের শুভঙ্করের ফাঁকি ধরতে পারতো না।

কিন্তু সময় পাল্টেছে।

আওয়ামী লীগের কোন কোন চেয়ারম্যান, মেম্বার,ছোট খাট নেতা বা সমর্থক চাউল চুরির সাথে যুক্ত হয়েছেন এটা সঠিক কিন্তু এটা আরও সঠিক আওয়ামী লীগের সরকার প্রধান ই তাদের রাজনৈতিক জীবন শেষ করে দিচ্ছেন চিরতরে।

এই ওসি, ডিসি, ইউএনও, নির্বাহী কর্মকর্তা সবাই তো আওয়ামী লীগের শুভাকাঙ্ক্ষী হয়েই দায়িত্ব পালন করছেন।।
তাহলে সরকার প্রধান না চাইলে এই সব চোর একজন ও কি ধরা পড়তেন?

মিডিয়া যদি সরকার চাইতেন এই সব নিউজ বের হবে না তাহলে কি সম্ভব হতো?

সুতরাং আওয়ামী লীগের সৌন্দর্য এটাই।
নিজের দলের সমালোচনা নিজের দলের লোকেরা সবার আগে করতে পারেন।

আওয়ামী লীগ যেমন সারাদেশে তৃনমুল পর্যায়ের নেতা কর্মীদের নিয়ে শুরু থেকেই কাজ করছেন,ছাত্রলীগের শত শত নেতা কর্মীদের জীবনের মায়া ত্যাগ করে কাজ করে যাচ্ছেন অন্য রাজনৈতিক সংগঠন গুলো কই?

জাতীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ কারী রাজনৈতিক দল গুলো কই?তাদের ভুমিকা কি?

প্রতিটি জেলা উপজেলা, পৌরসভা, সিটি কর্পোরেশন মেয়র পদে অংশ নেওয়া অন্য প্রার্থীরা কই?

তারা কি মানুষ কে কোন সহোযোগিতা করতেছেন?
কেউ দেখছেন, শুনছেন?

আপনারা যেহেতু মাঠে নাই, ঘাটে নাই, গরীবের পাশে নাই,মানুষের পাশে নাই তাহলে চুপ থাকেন।
আপনাদের সমালোচনা করা লাগবে না।চাইল চোর হোক আর সোনা চুরি হোক আমরাই সমালোচনা করবো আমরাই প্রতিবাদ করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নজরে আনতে সক্ষম হবো এবং তিনি কঠিন থেকে কঠোর হচ্ছেন হবেন।

সুতরাং ভোটের সময় গনতন্ত্রের সময় গলা ফাটিয়ে দেন জাত গেলো জাত গেলো—-!

কেন মানুষের রক্ত চোষা অর্থ মানুষের পিছে ব্যয় করেন না তাতে জাত যায়না?

এদের বয়কট করুন।

প্রিয় দেশপ্রেমিক ভাইয়েরা, তরুণ প্রজন্মের ভাইয়েরা আপনারা যারা এই ১২/১৩ বছরে বড় হয়েছেন, বুঝতে শিখেছেন তারা অবশ্যই আওয়ামী লীগের সমালোচনা করুন, ভুল ধরিয়ে দিন সেই সাথে এই সব ভন্ড সমালোচক সুবিধাজনক রাজনৈতিক দল কে ও চিনে রাখুন।

তোমরা ভুল করলে এই জাতি মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে পারবে না।

আর শোন -এই আওয়ামী লীগ নেতৃত্ব দিয়ে ৭১ এ ৩০ লক্ষ মানুষের জীবনের বিনিময়ে দেশ স্বাধীন করে দেখিয়েছিলেন আওয়ামী লীগ পারে, পারবে।

তখন ছিলেন বিশ্ব নন্দিত নেতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আর এখন রয়েছেন তার কন্যা জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা।

এ আঁধার কেটে যাবে ইনশাআল্লাহ।
নিশ্চয়ই আল্লাহ সহায় হবেন।

জয় বাংলা

add

ভালো লাগলে এই পোস্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরির আরো খবর
add
© theprovatibarta 2020 All rights reserved. কারিগরি সহায়তা:
Theme Customized By BreakingNews